Monday, November 23, 2020
Home জাতীয় করোনা ভাইরাস: কিস্তিতে বিল পরিশোধের সুবিধা কি সরকার দেবে?

করোনা ভাইরাস: কিস্তিতে বিল পরিশোধের সুবিধা কি সরকার দেবে?

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর পর থেকে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানির বিল নেয়া বন্ধ থাকায় এখন মানুষজনকে একসাথে তিন চার মাসের বিল দিতে হচ্ছে। অনেকে অভিযোগ করছেন মিটার না দেখে ইচ্ছামতো বিল ধরা হয়েছে।

দিন দশেক আগে বিদ্যুৎ, খনিজ ও জ্বালানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ৩০শে জুনের মধ্যে বকেয়া বিল না দিলে জরিমানা ও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে। এরপর শিল্পখাতের নেতৃবৃন্দ কিস্তিতে বিল পরিশোধ করার সুবিধা দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন।

বকেয়া বিল নিয়ে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে

ঢাকার মগবাজারের বাসিন্দা রাজিয়া সুলতানা ও তার পরিবার একটি ভবনের মালিক। সেখানে দশটি ফ্ল্যাট ভাড়া দেয়া রয়েছে। সব ধরনের বিল ভাড়ার টাকার মধ্যেই অন্তর্ভুক্ত করা।

রাজিয়া সুলতানা বলছেন গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির বিল বাবদ ১০ টি ফ্ল্যাটে সবমিলিয়ে বিল এসেছে ৮০ হাজার টাকার মতো।

কয়েকজন ভাড়াটিয়ার অনুরোধের পর ভাড়া কমিয়েছেন তিনি। নিচতলায় একটি ফ্ল্যাটে তিনমাস ভাড়াই পাননি।

তিনি বলছেন, “একবারে এতগুলো টাকা দেয়া একটা সমস্যা না? সরকার সুবিধা তো দিলোই না উল্টা আরও অসুবিধা করে ফেললো। একসাথে এত বিল সরকারের কারণেই জমল। এখন বলছে ৩০ তারিখের মধ্যে বিল না দিলে লাইন কাটা হবে।”

তিনি বলছেন, বিদ্যুতের ক্ষেত্রে যত বেশি ইউনিট ব্যবহৃত হবে, ইউনিট প্রতি মূল্যও বাড়তে থাকবে। এখনকার নিয়ম অনুযায়ী সর্বনিম্ন ৫০ ইউনিট ব্যবহার করলে ইউনিট প্রতি দাম ৩ টাকা ৫০ পয়সা।

চারশোএক থেকে ৬০০ ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহার করলে ইউনিট প্রতি দাম হবে ৯ টাকা ৩০ পয়সা। যদি ৬০০ ইউনিটের বেশি ব্যবহৃত হয় তাহলে ১০ টাকা ৭০ পয়সা।

রাজিয়া সুলতানা বলছেন, “মিটার না দেখে উল্টাপাল্টা বিল দিয়ে গেছে। রিডিং না দেখে আমার ইউনিট ব্যবহার বেশি দেখালে বিদ্যুতের বিলও বেশি আসবে। এই সমস্যা নিয়ে বিদ্যুৎ অফিসে দৌড়াদৌড়ি করলাম। তারা বলছে কিছু করতে পারবে না।”

দেরিতে বিল নেয়া সম্পর্কে এর আগে যা বলা হয়েছে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধে সাধারণ ছুটি শুরুর পর, সরকার ঘোষণা করেছিল যে ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত আবাসিক গ্রাহকদের বিদ্যুৎ ও গ্যাস ব্যবহারের বিলম্বিত বিল পরিশোধে কোনো অতিরিক্ত জরিমানা নেয়া হবে না।

এরপর তাতে জুন মাসও অন্তর্ভুক্ত করা হয়। গ্রাহকরা সাধারণত বিভিন্ন ব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে থাকেন।

এসব জায়গায় গ্রাহকরা করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হতেন পারেন সেই আশংকা থেকে দেরিতে বিল পরিশোধের এই সুবিধা ঘোষণা করা হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই

বাংলাদেশের সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার...

রাজধানীতে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে রিপন (২৬) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। রিপন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আব্দুর রহমানের ছেলে। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাতে মিরপুর বড় মসজিদের...

করোনা ভাইরাস: পেশাগত পরীক্ষায় কেন অটো প্রমোশন চান মেডিকেল শিক্ষার্থীরা

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত পাঁচ মাস ধরে অনিশ্চয়তার মধ্যে আছেন মেডিকেলের এমবিবিএস শিক্ষার্থীরা। গত মে মাসে তাদের প্রফেশনাল বা ফাইনাল পরীক্ষা হবার কথা ছিল। কিন্তু...

ভারতীয় ক্রিকেটার কপিল দেব হৃদরোগে আক্রান্ত

কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার এবং ১৯৮৩ বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক কপিল দেব হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নয়াদিল্লির হাসপাতালে অ্যানজিওপ্লাস্টি করিয়েছেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, মহামারির আগে সাম্প্রতিক সময়ে...

Recent Comments