Saturday, October 24, 2020
Home অর্থ-বাণিজ্য দ্বিগুণ ঋণ নিয়ে শুরু সরকারের নতুন অর্থবছর

দ্বিগুণ ঋণ নিয়ে শুরু সরকারের নতুন অর্থবছর

ঢাকা: রাজস্ব আদায় কম হওয়ায় সরকার বিপুল অংকের ঋণ নিয়ে জুলাই মাসে নতুন অর্থবছর শুরু করেছে।

২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ট্রেজারি বিল ও বন্ড থেকে লক্ষ্যমাত্রার প্রায় দ্বিগুণ ১৩০ দশমিক ৮৭ বিলিয়ন টাকা ঋণ নিয়েছে সরকার।

এর আগে সরকার বাজেটের ঘাটতি মেটাতে বন্ডের বিপরীতে ৭০ দশমিক ৫০ বিলিয়ন টাকা প্রি-অকশন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল।

মোট ঋণের মধ্যে ব্যাংকিং খাত থেকে নিয়েছে ১৯০ দশমিক ৩২ বিলিয়ন টাকা এবং ব্যক্তি ও বেসরকারি উদ্যোগ থেকে নিয়েছে ২১ দশমিক ৫৫ বিলিয়ন টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্ভর যোগ্য সূত্র জানিয়েছে, অপর দিকে বাংলাদেশ ব্যাংক ২৮ দশমিক ৭২ বিলিয়ন টাকা সমন্বয় করার পর ২৯ জুলাই পর্যন্ত সরকারের প্রকৃত ব্যাংক ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮০ দশমিক ৫৯ বিলিয়ন টাকা।

সরকারের ঋণ ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, জুলাই মাসে রাজস্ব আদায় কম হওয়ার কারণে সরকার ঋণ নিতে বাধ্য হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, সরকারের ব্যাংক ঋণ স্বাভাবিকভাবেই প্রত্যেক বছরের জুন-জুলাই মাসে বৃদ্ধি পায়।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, জুলাই মাসে সার্বিকভাবে রাজস্ব আদায় ২২ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ কমে আদায় হয়েছে ১২৩ দশমিক ৩৪৫ বিলিয়ন টাকা। আগের বছরের একই সময়ে আদায় হয়েছিল ১৫৮ দশমিক ৩৮ বিয়িলন টাকা।

জুলাই মাসে ১৯৩ দশমিক ৭৮ বিলিয়ন টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হলেও করোনাভাইরাস মহামারির প্রভাবে ৭০ দশমিক ৪৪ বিলিয়ন টাকা আদায় কম হয়েছে।

অপর দিকে সরকার ব্যাংকিং খাত থেকে আগস্ট মাসে ৫৮ বিলিয়ন টাকা ঋণ নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সম্প্রতি প্রকাশিত সরকারের নিলাম বর্ষপঞ্জি মতে, আগস্ট মাসে ব্যাংকিং খাত ও ট্রেজারি বন্ড থেকে সরকারের মোট ঋণের পরিমাণ দাঁড়াবে ১৯০ বিলিয়ন টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে সরকারি সিকিউরিটির মেয়াদ পূর্তির কারণে ১৩১ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার কেটে নেওয়ার পরে একক মাস হিসেবে আগস্টে সরকারের ব্যাংক ঋণ ৫৮ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তা মনে করেন, আগামীতে রাজস্ব আদায় না বাড়লে সরকারের ব্যাংক ঋণ গ্রহণের প্রবণতা অব্যাহত থাকবে।

একটি বেসরকারি ব্যাংকের শীর্ষ নির্বাহী বলেন, সরকারি সিকিউরিটি তহবিলে কর্পোরেট ও ব্যক্তিখাতের অংশগ্রহণে ব্যাংকিং খাতের তহবিলের ওপর চাপ কমেছে।

তিনি আরও বলেন, বিমা কোম্পানিগুলো বিশেষ করে জীবন বিমা কোম্পানিগুলো সরকারি সিকিউরিটিতে বিপুল পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করেছে। চলতি অর্থবছরে সরকারের ব্যাংক ঋণের লক্ষ্যমাত্রা যথেষ্ট।

চলতি অর্থবছরে ৮৪৯ দশমিক ৮০ বিলিয়ন টাকা ঋণ নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ৭৯ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে ঋণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৭৩ দশমিক ৬৪ বিলিয়ন টাকা।

এ অবস্থায় সরকার দীর্ঘমেয়াদী বন্ড থেকে ৫৩৬ দশমিক ৫৪ কোটি টাকা এবং ট্রেজারি বিল থেকে ৩১৩ দশমিক ২৬ বিলিয়ন টাকা ঋণ নেবে।

ব্যাংকিং ব্যবস্থা থেকে সরকারি ঋণ সামঞ্জস্য করতে বর্তমানে নিলামের মাধ্যমে তিনটি ট্রেজারি বিল লেনদেন হচ্ছে। এছাড়াও ০২, ০৫, ১০, ১৫ এবং ২০ বছর মেয়াদী পাঁচ ধরনের সরকারি বন্ডের মাধ্যমে বাজারে লেনদেন হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই

বাংলাদেশের সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার...

রাজধানীতে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে যুবকের মৃত্যু

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে রিপন (২৬) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। রিপন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আব্দুর রহমানের ছেলে। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) রাতে মিরপুর বড় মসজিদের...

করোনা ভাইরাস: পেশাগত পরীক্ষায় কেন অটো প্রমোশন চান মেডিকেল শিক্ষার্থীরা

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত পাঁচ মাস ধরে অনিশ্চয়তার মধ্যে আছেন মেডিকেলের এমবিবিএস শিক্ষার্থীরা। গত মে মাসে তাদের প্রফেশনাল বা ফাইনাল পরীক্ষা হবার কথা ছিল। কিন্তু...

ভারতীয় ক্রিকেটার কপিল দেব হৃদরোগে আক্রান্ত

কিংবদন্তি ভারতীয় ক্রিকেটার এবং ১৯৮৩ বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক কপিল দেব হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নয়াদিল্লির হাসপাতালে অ্যানজিওপ্লাস্টি করিয়েছেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, মহামারির আগে সাম্প্রতিক সময়ে...

Recent Comments